জন্মাষ্টমীর আলোচনা সভায় : এরশাদ অর্পিত সম্পত্তির ব্যাপারে হিন্দুদের দাবীর প্রতি একাত্মতা ঘোষণা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ঢাকা, ২৩ আগষ্ট ২০১১ :

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ অর্পিত সম্পত্তির ব্যাপারে হিন্দু সম্প্রদায়ের দাবীর প্রতি একাত্মতা ঘোষণা করে বলেছেন, সরকার এই বিষয়টি নিয়ে কোনো কার্যকরী আইন পাশ করতে চাইলে আমরা জাতীয় পার্টির প থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাবো।
সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ আজ মঙ্গলবার তাঁর বনানীস্থ কার্যালয়ের মিলনায়তনে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সাথে এক শুভেচ্ছা বিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছিলেন। এই সভায় জাতীয় পার্টির প থেকে হিন্দুদের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমদ, জিয়াউদ্দিন বাবলু, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, কেন্দ্রীয় সদস্য বাবু সমীর গুপ্ত এবং হিন্দু নেতৃবৃন্দের প থেকে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা ক্যাপ্টেন (অব.) শষীন কর্মকার, মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি বাবু বীরেশ সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু নির্মল কুমার চ্যাটার্জি ও গুলশান-বনানী পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবু পান্না লাল দত্ত। এর আগে হিন্দু সম্প্রদায়ের  নেতৃবৃন্দ সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদকে ফুলের তোড়া উপহার দিয়ে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। শুভেচ্ছা বিনিময় সভায় জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম মসিহ, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা বাদল খন্দকার, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক তরুন বসু, যুবসংহতির রতন সরকার এবং ছাত্র সমাজের ঝুটন দত্ত।
জন্মাষ্টমী উপলে দেশের হিন্দু সমাজের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়ে সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, ঐতিহ্যগতভাবে বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে আছে। এই ঐতিহ্য আমাদের যেকোনো মূল্যে ধরে রাখতে হবে। তিনি বলেন, আমরা ভিন্ন ভিন্ন ধর্ম-মত বা পথের মানুষ হতে পারি। কিন্তু প্রত্যেক ধর্মের আনন্দ উৎসব আমরা সবাই সমানভাবে ভাগ করে উপভোগ করি।
জন্মাষ্টমীর মাহাত্ম বর্ণনা করে সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, পৃথিবীতে যখন মানুষ ধর্মের পথ থেকে সরে যায় কিংবা অত্যাচারীর উত্থান ঘটে এবং অধর্মের প্রাদুর্ভাব হয়- তখন বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং মানুষকে আবার ধর্মের পথে ফিরিয়ে আনতে সৃষ্টিকর্তা অবতার হিসেবে আগমণ করেন। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ ছিলেন তেমনই এক অবতার। তিনি অত্যাচারী কংশকে ধ্বংস করতে- তারই কারাগারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। ধর্মগ্রন্থের এইসব ঘটনা প্রবাহ মানবজাতির জন্য এক একটি শিা হয়ে আছে।
হিন্দুদের কল্যাণে গৃহীত কর্মকান্ডের কথা উল্লেখ করে সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, জন্মাষ্টমীর দিন সরকারী ছুটি ঘোষণা, হিন্দু কল্যাণ ট্রাষ্ট গঠন, চাকুরীতে হিন্দুদের অধিকহারে নিয়োগ সুবিধাসহ অনেক কাজ আমি করেছি। অর্পিত সম্পত্তি আইন স্থগিত করেছিলাম। সময় ও সুযোগ পেলে এই আইন আমি রহিত করতে পারতাম। তিনি- এই আইনের ব্যাপারে হিন্দুদের ন্যায়সঙ্গত দাবী মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।